ঘরোয়া উপায়ে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ

আজকাল আমাদের দেশে ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। শরীরে যখন পর্যাপ্ত ইনসুলিন তৈরি হয় না তখন রক্তের সুগারের পরিমান বেড়ে যায়। যার ফলে ডায়াবেটিস নামক রোগের সৃষ্টি হয়। ডায়াবেটিস এমন একটি রোগ যা কখনোই সারে না। তবে কিছু নিময়কানুন মেনে চললে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। প্রথমে আমরা জেনে নিব ডায়াবেটিস এর কিছু লক্ষণসমূহ-

  • ঘন ঘন খিদে পাওয়া
  • তৃষ্ণা পাওয়া
  • চোখে ঝাপসা দেখা
  • ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া
  • পরিশ্রম ছাড়াই ক্লান্ত অনুভব হওয়া
  • ক্ষত / কাটা স্থান সহজে সারে না
  • ওজন কমে যাওয়া
  • হাতে পায়ে ব্যাথা অনুভব / অবশ হওয়া

এবার আমরা জেনে নিব কিভাবে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করা যায় সে সম্পর্কে-

ডায়াবেটিস এ ভোগার সময়কাল যদি ৪ বছরের কম হয় তাহলে খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তনের মাধ্যমে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ শতকরা ৯০ ভাগ সম্ভব। মিষ্টি জাতীয় খাবার পরিহার করতে হবে। রাতে শর্করা জাতীয় খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে। কারণ শর্করা জাতীয় খাবার রক্তে সুগারের পরিমান বাড়িয়ে দেয়। তিন বেলাই প্রোটিনযুক্ত খাবার ২১ দিন ধরে খান। তাহলে রক্তে চিনির মাত্রা কমে গিয়ে ডায়াবেটিস স্বাভাবিকে আসবে। মাছ, মুরগির মাংস, ডিম, মটরশুঁটি, দুধ ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন রয়েছে। বাদাম ইনসুলিনের প্রভাবহকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। তাই ডায়াবেটিস রোগীকে প্রতিদিন সকালে একটি হলেও বাদাম খেতে হবে। সবজি ও সালাদ পাতা ডায়াবেটিস রোগীর জন্য খুবই উপকারী। প্রতিদিন প্রচুর পরিমানে সালাদ খেতে হবে। করলার জুস ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সহায়ক। তাই প্রতিদিন করলার জুসও খেতে পারেন। আমলকির জুস ও গুড়া ডায়াবেটিস রোগির জন্য খুবই উপকারী। নিমের কয়েকটি পাতা প্রতিদিন সকালে খালি পেটে চিবিয়ে খান। নিমের পাতা রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে।

উপরোক্ত নির্দেশনাবলি মেনে চললে আপনার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*